মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

হরিপুরে প্রকৃতি কে সভামন্ডিত করেছে হলুদ বরণের সোনালু ফুল

সিরাজুল ইসলাম
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

সোনা বরণ হলুদ রং তাই ডাক নাম সোনালু।
গ্রীষ্মের পথঘাটে সোনালী হলুদ ফুলে প্রায় নুয়ে পড়া সোনালু/সোনাইল গাছ এই ঋতুর এক মন মাতানো দৃশ্য। সোনালী তুষারে ঢেকে যাওয়া এই গাছ গ্রীষ্মের প্রকৃতির একটি বড় অংশ দখল করে রাখে।
এমনকি বসন্তেও এর ফুলেল রূপ দেখা যায় না। সমস্ত বসন্ত কাল হলো এর প্রস্তুতি কাল, পুরোটা বসন্ত জুড়ে প্রস্তুতি নিয়ে বৈশাখের শুরুতে, ইংরেজি এপ্রিল/মে মাসের দিকে এই সোনালী হলুদ অপূর্ব সুন্দর ফুল ফোটা শুরু হয়। এর হালকা মিষ্টি সুবাস, এর কাছে প্রজাপতি, মৌমাছি, পাখি ডেকে আনে।
এর বৈজ্ঞানিক নাম Cassia fistula. ইংরেজি নাম Golden shower.
বাংলায় এর অনেক মনোহর নাম আছে, সোনালু বা সোনাইল।ইংরেজিতে
Golden shower বলি অথবা সোনালু/সোনাইল, প্রতিটিই এই ফুলের অপূর্ব সোনাঝরা রূপের কথাই মনে করিয়ে দেয়। এই যে গ্রীষ্মে তার আবির্ভাব এবং পুরো গাছ কে তার রঙ্গে রাঙ্গিয়ে দেয়া ( শুধু গাছকেই বলি কেন, পুরো প্রকৃতিকেই সে তার সোনাঝরা রঙ্গে সাজায় ), এই বৈশিষ্ট্য সোনালু ফুল কে এক অন্য কাতারে দাঁড় করায়।
গ্রাম গন্জে এর আরেক নাম আছে বানর লাঠি। মূলত ফলের কারণেই এরূপ নামকরণ লম্বা লাঠির মতো ফল ধরে এই গাছে। মিষ্টি উপাদেয় এই ফল বানরের বেশ পছন্দের তালিকায় থাকায় ‘বাঁদরলাঠি’ নামকরণ টি সার্থকতা পেয়েছে।ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় রাস্তার আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে এই মনোরম শোভিত সোনালি বর্ণের এই সোনালু ফুল সভা ছড়াচ্ছে প্রকৃতিকে মাথা নুয়ে স্বাগত জানাচ্ছে প্রকৃতি প্রেমিকদের। হরিপুর উপজেলার মোঃতসলিম উদ্দিন জানান আগে গ্রামে রাস্তার আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকতে দেখা গেছে এই ফুলের গাছ কে কিন্তু অতিরিক্ত গাছ পালা নিধনের ফলে এই ঔষধী সম্পূর্ণ গাছ গুলো এখন কমই নজরে পড়ে।তাই আমাদের সকলের উচিত প্রকৃতির বুকে এই ঔষধী সম্পূর্ণ গাছ টি টিকেয়ে রাখা।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন