সোমবার, ২০ মে ২০২৪

সরিষাবাড়ীতে ইউপি সদস্যকে মারধর করলো যুবলীগ নেতা 

মাসুদ রানা
জামাল পুর জেলা প্রতিনিধি

জামালপুরে  সরিষাবাড়ীতে রেজাউল করিম নামে এক ইউপি সদস্যকে মারধর করছে যুবলীগ নেতা। এঘটনা ঘটেছে উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে সচিবের কক্ষে।

স্থানীয় ও পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (১৫ মে) বেলা সাড়ে বারোটার দিকে যুবলীগ নেতা মামুনুর রশিদ মামুন ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে ঢুকে সচিবের রুমে বসে থাকা ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রেজাউল করিমকে অতর্কিত হামলা ও মারধর করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়ে দেয়।

অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনো গ্রামের মৃত আইন উদ্দিন মাষ্টারের ছেলে। সে উপজেলা যুবলীগের একজন বহিষ্কৃত নেতা। তার বিরুদ্ধে স্থানীয়ভাবে নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও সে একজন মাদক সেবী বলে স্থানীয়রা জানান।

পরিষদের সচিব মেহেদী হাসান  জানান, আমার অফিসে ইউপি সদস্য রেজাউল করিম বসে কথাবার্তা বলছিলেন। হঠাৎ মামুন এসে মেম্বার কে বাহিরে যেতে বলে। মেম্বার বাহিরে যেতে না চাইলে তাকে মারধর শুরু করে এবং টেনেহিঁচড়ে বাহিরে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে অবগত করা হয়েছে।

এদিকে পরিষদে কর্মরত গ্রাম পুলিশ খুব চয়ন জানান, আমরা ওই সময় বাহিরে ছিলাম। মারধরের শব্দ শুনে দৌড়ে পরিষদের ভিতরে গিয়ে দেখি মামুন রেজাউল মেম্বারকে মারধর করছে। পরে আমরা সবাই মিলে ছাড়িয়ে দেই। তবে কি নিয়ে মারামারি হয়েছে তা জানিনা।

আহত রেজাউল মেম্বার জানান, মামুনের সাথে আমার কোন বিবাদ নেই। সে মাদকাসক্ত একজন ছেলে। তার সাথে আমি কথাও বলি না। আজ কেন সে আমাকে অতর্কিত হামলা ও মারধর করলো আমি জানি না। তবে নিশ্চয়ই সে কারো নির্দেশনায় করেছে। আমি বিষয়টি চেয়ারম্যানকে অবগত করে আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছি।

অভিযুক্ত মামুনের সাথে এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এবিষয়ে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি একেএম আশরাফুল ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ তিনি বলেন এই বিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই।

এবিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক স্বপন সাংবাদিকদের জানান, এঘটনায় আমি তীব্র নিন্দা জানাই এবং সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

এবিষয়ে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুশফিকুর রহমান বলেন, মারধরের সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন