রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

শিবগঞ্জে ৮মাস আগের মৃত ববিতা স্বামী সহ বাড়ি ফিরে আসায় উপজেলাজেলা ব্যাপী তোড়পাড়

শিবগঞ্জ(চাঁপাইনবাবগঞ্জ)সংবাদাতা:

 

খুনের শিকার ববিতা দীর্ঘ আট মাস পর স্বামী সহ আবারো পিতার বাড়ি ফিরে এসেছে ।ঘটনাটি জেলা ব্যাপী তোড়পাড় সৃষ্টি করেছে। তবে লোকের মুখে মুখে একই কথা ঘটনাটি বড়ই রহস্যজনক।ঘটনাটি ঘটেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের খড়িয়াল গ্রামে। ববিতা হলো রসুল আলির মেয়ে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার মামলা (নং ৫২,তারিখ ২৬জুলাই ২০২৩)সুত্রে জানা গেছে গত ২৬ জুলাই ২০২৩ খ্রী: তারিখে বিকাল সোয়া চারটার সময় ৯৯৯ নং কল সুত্রে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার বালিয়া ডাঙ্গা ইউনিয়নে পালসা গ্রামের লীলাখেলা মোড়ে বস্তা বন্দী একটি লাশ পড়ে থাকার সংবাদ পেয়ে এস আই বদিউজ্জামানের নেতৃত্বে সংগীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের পর পাঠানো হয়। মামলার এজাহারে উল্লেখ্য আছে কে বা কারা যে গত ১৬-০৭-২০২৩ হতে ২৬-০৭-২০২৩খ্রী: তারিখের মধ্যে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ^াসরুদ্ধ করে হত্যার পর লাশ গুমের উদ্দেশ্যে এখানে ফেলে দিয়েছিল। এ ঘটনায় তদন্তকারী কর্মকর্তা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার এস আই আফজাল গত ৯ আগস্ট ২০২৩খ্রী: তারিখে শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর বিনোদপুর ইউনিযনের কালিগঞ্জ ক্যাপড়াটোলা গ্রামের এনামুল হকের ছেলে রুবেল হক(২৮)কে গ্রেফতার করে জেলা কারাগারে প্রেরণ করেন।বর্তমানে রুবেল জামিনে মুক্ত আছে। বর্তমানে মামলাটি বিচারাধীন আছে। কিন্তু গত কাল ১৭ জানুয়ারী ২০২৪খ্রী: তারিখে ববিতার তার স্বামী মাজেদ আলিকে সংগে নিয়ে মনাকষাতে তার পিতার বাড়িতে উপস্থিত হলে এলাকায় হৈচৈ পড়ে যায় এবং শত শত নারী পুরুষ তাদেরকে দেখার জন্য ভীড় করে। এ সময় ববিতা বলেন প্রায় আট মাস আগে রুবেল আমাকে ফোন করে ডাকলে আমি তার কথা মত হাউস নগর গ্রামের মাথায় উপস্থিত হয়। এ সময় তার সাথে আরো দুইজন আমাকে নওগাঁয় নিয়ে যায় এবং তিনজনই আমাকে কোন স্থানে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করার পর ঘুমের ঔষধ খাইয়ে আমাকে ফেলিয়ে পালিয়ে যায়। আমি এর বিচার চাই। অন্যদিকে তার স্বামী ও নওগাঁ জেলার মান্দা থানার পরইল কাঞ্চন গ্রামের মৃত আফসার আলির ছেলে মাজেদ আলি জানান এক বছর আগে আমার স্ত্রী আমাকে ছেড়ে চলে যাওয়ায় প্রায় সাড়ে চার মাস আগে মান্দা এলাকায় একটি অটো গ্যারেজের পাওয়া ববিতাকে বিয়ে করি। বিয়ের সময় তার নাম পিয়া খাতুন, বাাড়ি কুঁড়িগ্রাম বলে পরিচয় দেয়। বিয়ের পর তাকে ঢাকা গিয়ে আমি একটি গার্মেন্টেসে চাকুরী করি । এরমাঝে তার অসুখ হলে চিকিতসা করাই এবং তার পিতার বাড়ি নিয়ে যাবার জন্য ঠিকানা চাইলে সে কোন ঠিকানা দিতে পারেনি। তবে সে হুমায়ুন রেজা উচ্চবিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেছে বলে জানালে গুগলে সার্চ দিয়ে তার ঠিকানা বের করে মনাকষার তার পিতার বাড়ি আসি। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী জানান ববিতা আগে থেকে কিছুটা মস্তিঙ্কো বিকৃতি ছিল। তবে রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া তো একটি ষড়যন্ত্র । উল্লেখ্য গত ১১ জুলাই ২০২৩ খ্রী: তারিখে ববিতার পিত রসুর আলি শিবগঞ্জ থানায় রুবেলেল কালিগঞ্জ ক্যাপড়াটোলা গ্রামের এনামুল হকের ছেলে রুবেলের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ করেছিল। শিবগঞ্জ থানায় সেকেন্ড অফিসার খাইরুল ইসলাম জানান,ববিতা ও তার পিতাকে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসা করে তাদের বাড়ি পাঠানো হয়েছে। তার বর্তমান স্বামীর ব্যাপারে কিছু বলতে পারবো না। তবে শুনেছি সে বিয়ে করেছে এবং প্রায় আট মাস আগে বালিয়াডাঙ্গাতে উদ্ধারকৃত লাশ ববিতর বলে তার পিতা দাবী করেছিল। শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন জানান, মেয়েকে তার পিতার কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের পালসা গ্রাম থেকে উদ্ধার কৃত বস্তাবন্দী লাশের ব্যাপারে তাকে সন্দেহজনক ভাবে আটক করা হয়েছিল ।এখন আবার সে মামলার তদন্ত হবে।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন