সোমবার, ২০ মে ২০২৪

লাখাইয়ে অজ্ঞাত লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে, থানায় খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে

মুফতী আসাদুজ্জামান আনোয়ারী
হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

লাখাইয়ে অজ্ঞাত লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে। অজ্ঞাত লাশের বাড়ী লাখাই উপজেলার পূর্ব সিংহগ্রাম সে মৃত মোয়াজ্জেম হোসেন এর   ছেলে  লাখাই সাবরেজিস্টার অফিসের দলিল লেখক শাহ আমজাদ হোসেন নয়ন (৪০)।

এ বিষয়ে লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবুল খায়ের জানান, গত শনিবার  ১১ মে  দুপুরে মোবাইল ফোনে সংবাদ পেয়ে আমি এবং পুলিশের উপ-পরিদর্শক মৃদুল কুমার ভৌমিক ও শৈলেশ চন্দ্র দাস সহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স জিরুন্ডা গ্রামের উত্তরে ও চিকনপুর গ্রামের পূর্ব হাওড়ে ঘটনাস্থলে পৌছে অর্ধগলিত  মাটিচাপা অবস্থায় মৃতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসি এবং মৃতের সুরতহাল তৈরী করি।
পরবর্তীতে লাশের পরিচয় সনাক্ত করার জন্য হবিগঞ্জ জেলার পিবিআই টিম ও সিআইডি টিম আসে কিন্তু লাশ অর্ধগলিত হওয়ায় লাশের সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।
পরবর্তীতে সোমবার ১৩ মে  মৃতের ১ম স্ত্রী সহ থানায় কিছু লোকজন এসে মৃতের শরীরে পরিহিত গেন্জি, প্যান্ট ও কোমরের ব্যাল্ট দেখে শাহ আমজাদ হোসেন নয়ন এর মৃতদেহ বলে সনাক্ত করে।
মৃতের ১ম স্ত্রী ও তার সাথে আসা লোকজন এর সাথে আলাপ করে আমরা নিশ্চিত হতে পেরেছি যে মৃত লাশই মৃত শাহ আমজাদ হোসেন নয়ন এর মৃতদেহ।

তিনি আরো জানান,  মৃত আমজাদ হোসেন এর ১ম স্ত্রীর কথার সাথে মৃতের পারিপার্ষিক বিষয় অনেকটা মিলে যাওয়ায় সোমবার ১৩ মে  দিবাগত রাতে আমার থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক মৃদুল কুমার ভৌমিক বাদী হয়ে অজ্ঞাত নামা আসামী করে থানায় খুনের মামলা দায়ের করেছে।
এবং মামলাটি তদন্ত করার জন্য লাখাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) তদন্ত চম্পক দামকে দায়িত্ব দিয়েছি।

তিনি আরো জানান, আমজাদ হোসেন নয়ন এর খুনের বিষয়ে তথ্য উপাত্ত বের করার জন্য প্রয়োজনীয় যা যায় করনীয় তদন্ত অব্যাহত আছে এবং এই খুনের মূল রহস্য উদঘাটন করতে তদন্ত অব্যাহত থাকবে আশাকরি এই খুনের রহস্য উদঘাটন করতে পারবো।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন