সোমবার, ২০ মে ২০২৪

মিরপুর গাবতলী গবাদি পশুর হাটের ইজারায় 

বিশেষ প্রতিনিধি

 

 

মিরপুর গাবতলী গবাদি পশুর হাটের ইজারায়

অর্থ  দিতে ব্যর্থ প্রথম সর্বোচ্চ দরদাতা । গত

৭ মার্চ ২০২৪ ইং প্রথম সর্বোচ্চ দরদাতার দরপত্র গৃহীত পূর্বক টেন্ডার বিজ্ঞপ্তির শর্তানুসারে গত ২১ মার্চ ২০২৪ ইং ৭ কার্যদিবসের মধ্যে অবশিষ্ট মূল্য বা অর্থ জমা পূর্বক কার্যাদেশ প্রদানের নির্দেশ করলে ( ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক পত্র প্রদানের স্মারক নং ৪৬.১০.০০০০ ০২০.০০. ২৪৯.২৪ – ১৪৮ )  প্রথম সর্বোচ্চ দরদাদা ইজারার অবশিষ্ট মূল্য বা অর্থ জমা দিতে ব্যর্থ হয় ।  যা গত ২ এপ্রিল পর্যন্ত সময় ছিল বলে জানা যায়  । তাই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দরদাতা এইচ এন ব্রিকস এর প্রোপ্রাইটর মোঃ লুৎফর রহমান এর আবেদন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মেয়র বরাবরে । আবেদনে তিনি উল্লেখ্য করেন তাহার দাখিলকৃত দরপত্র গৃহীত পূর্বক ইজারা মূল্যের যা দরপত্রে  অবশিষ্ট – সেই মূল্য জমা দানের সুযোগ প্রাপ্য বলে দাবি করেন তিনি । ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মেয়র বরাবরে গত ৪ এপ্রিল  আবেদন করে এ দাবি তুলেন তিনি ।  দ্বিতীয় দরদাতা প্রথম দরদাতার মূল্য ১৭ কোটি ১২ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নির্দেশ দেওয়া মাত্রই  দিতে প্রস্তুত আছে বলেও আবেদনে জানান । দ্বিতীয় দরদাতা বলেন আমার দরপত্র গৃহীত হওয়া মাত্রই আমি অবশিষ্ট ইজারা মূল্য সাথে সাথে জমা প্রদান করব । ২৪ ঘন্টার মধ্যে দ্বিতীয় দরদাতাকে অনুমতি পত্র দিয়ে গৃহীতের আবেদন করেন- ২ এপ্রিল প্রথম সর্বোচ্চ দরদাতার মূল্য বা অর্থ দিতে ব্যর্থ হওয়ার পর।  দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দরদাতা এ আবেদনটি করেন ৪ এপ্রিল।  এ ব্যাপারে জানতে সরাসরি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন  প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তার দপ্তরে গেলে,  প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ মাহে আলম পরামর্শ দেন  ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মকবুল হোসাইন এর সাথে দেখা করতে । আর জনসংযোগ কর্মকর্তার সাথে দেখা হলে তিনি প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তাকে সাথে সাথে ফোন দিয়ে জেনে প্রথম সর্বোচ্চ দরদাতা গাবতলীর কোটবাড়ির মোঃ সোহরাব হোসেনের পুত্র  মোঃ মনোয়ার হোসেন  (প্রথম সর্বোচ্চ দরদাতা) অর্থ প্রদান করতে ব্যর্থ হয়েছে সে বিষয়ে নিশ্চিত করেন

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন