রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

মধুপুরে রাতের আঁধারে হামলা মারপিট আহত ৬

মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

 

টাঙ্গাইলের মধুপুরের মহিষমারা ইউনিয়নের শালিকা বাজার এলাকায় রাতের আঁধারে জমি দখল করে জোরপূর্বক ঘর তোলার সময় আগত হামলাকারীদের মারপিটে আহত হয়েছেন ৬ জন।

জানা যায় শালিকা গ্রামের মৃত মরতুজ আলীর ছেলে সিদ্দিক ফকিরের সহিত একই গ্রামের আঃ আজিজ এর ছেলে সাইফুল ইসলাম এর সাথে দীর্ঘ দিন যাবৎ জমি জমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে শুক্রবার রাত আনুমানিক ৩ টাব দিকে সাইফুল ইসলাম পার্শ্ববর্তী ধলুয়া গ্রামের হাফিজ উদ্দিন, তার ভাই মুক্তার হোসেন, শহিদ ওরফে শহু,মারফত, আহমদ আলীর ছেলে বাবুল, আজিজের ছেলে সাইফুল, শহুর ছেলে আশরাফ, মারফত আলীর ছেলে সবুজ, আজিজের ছেলে সফি আব্দুল হাই,সাইফুলের ছেলে রমজান, মেছের সহ আরও অজ্ঞাত নামা ২০/২৫ জন লোক ভাড়া করে এনে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সিদ্দিক ফকিরের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এসময় সিদ্দিক হোসেন বাধানিষেধ করলে তাকে মারপিট করে শব্দ শুনে একই বাড়ীতে থাকা ইউসুফের ছেলে হিমেল, হালিমের ছেলে ইউসুফ, হারুনের ছেলে রাকিবুল শালিকা বাজার

মসজিদের ইমাম ক্বারী আব্দুল জলিল ছোরহাবের স্ত্রী আহত হন।আহতদের ডাকচিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্হানীয় লোকজন আহতদের উদ্দার করে মধুপুর উপজেলা সরকারী হাসপাতালে পাঠান। তাদের মধ্যে ইউসুফ,হিমেল,রাহাদুল, সিদ্দিকের অবস্হা আশঙ্কা জনক হওয়ায কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। বাকী দুইজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয় বলে জানা যায়।

শালিকা বাজার মসজিদের ইমাম আহত আঃ জলিল জানান, আমি মসজিদে ছিলাম শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে যাই, দেখি বিবাদীরা মারপিট ও ভাংচুর করছে আমি নিষেধ করায় হামলাকারীরা আমাকেও মারপিট করে আহত করে।শালিকা জাফর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র রাকিবুল জানায় আমি চাচাকে বাঁচাতে গেলে সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকেও মারপিট করে।

এই সন্ত্রাসী হামলার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন ভুক্তভোগী পরিবার সহ এলাকাবাসী। এব্যাপারে মধুপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা আজিজুর রহমান এর সহিত কথা বললে তিনি জানান লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন