মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

মধুপুরে মসলা জাতীয় ফসলের মাঠ দিবস পালিত

আঃ হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

 

 

টাঙ্গাইলের মধুপুরে মসলার উন্নত জাত ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় মাঠ দিবস পালিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ফেব্রুয়ারী) বিকালে মধুপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে উপজেলার কুড়াগাছা ইউনিয়নের কৃষক আলমগীর হোসেন এর বাড়ীতে এ মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।
মাঠ দিবসে উপজেলা কৃষি অফিসার আল মামুন রাসেল এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ির উপ-পরিচালক মোহাম্মদ দুলাল উদ্দিন

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিসম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ী টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত উপপরিচালক (উদ্যান) মো. শোয়েব মাহমুদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ধনবাড়ী উপজেলার কৃষি অফিসার মাসুদুর রহমান, মধুপুর উপজেলা উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান,উপসহকারী কৃষি অফিসার তাপস কুমার সরকার, আব্দুর রহিম রাজু, মাজেদুর রহমান, খাজা মাইনউদ্দিন,ফারুক হোসেন,মধুপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল হামিদ। এসময় কুড়াগাছা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক শতাধিক কৃষক কৃষাণীগন সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করেন।

মাঠ দিবসে অতিথিগন বলেন, সরকারের পাশাপাশি কৃষকের আগ্রহ থাকলে আগামীতে মসলা জাতীয় ফসলের উৎপাদন করে নিজেদের চাহিদা নিজেরাই পূরণ করতে পারবে।
মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে উপজেলা কৃষি অফিসার আল-মামুন রাসেল বলেন, আমাদের দেশ বেশকিছু খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হলেও মসলা জাতীয় খাদ্য উৎপাদনে এখনো স্বয়ংসম্পন্ন নয়। এখনো বিদেশ থেকে অনেক মসলা জাতীয় খাদ্য আমদানি করতে হয়। আমদানি কমাতে মসলা জাতীয় ফসলের উৎপাদন বাড়াতে সরকার প্রণোদনাসহ বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করেছেন। সরকার চাইছে আমাদের কৃষকেরা নিজেরাই আবাদ করে, মসলা জাতীয় ফসল উৎপাদনে সফল হবে। তাহলে অনেক বৈদেশিক মুদ্রা বেঁচে যাবে। কৃষকের মসলা জাতীয় ফসল উৎপাদনে আগ্রহ বাড়াতেই এই মাঠ দিবসের আয়োজন করা হয়েছে।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন বলেন, পিঁয়াজ, আদা, হলুদ, মরিচসহ বেশ কিছু মসলা আমদানি করতে হয়। সামনের দিনগুলোতে আমদানি কমাতে এবং মসলা জাতীয় ফসল উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হবার জন্য আজকের এই আয়োজন গ্রহণ করা হয়েছে। সকল কৃষককে খাদ্যশস্য উৎপাদনের পাশাপাশি মসলা জাতীয় ফসলের উৎপাদন বাড়াতে হবে। তাহলে আমাদের বিদেশের উপর আর নির্ভর করতে হবে না।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন