সোমবার, ২০ মে ২০২৪

বৃষ্টির জন্য বিশেষ নামাজ আদায় ও মোনাজাত

মোঃ মিরাজুল শেখ
জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট

তীব্র তাপদাহের সঙ্গে বইছে গরম বাতাস। প্রচণ্ড গরম, কাঠফাটা রোদে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। একের পর এক জারি করা হচ্ছে হিট অ্যালার্ট। এমন পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে মোংলায় বৃষ্টির জন্য বিশেষ নামাজ (সালাতুল ইসতিসকা) আদায় করা হয়েছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) সকাল ১০টায় পৌর ঈদগাহ মাঠে মোংলা উপজেলা ইমাম পরিষদের উদ্যেগে ও মোংলা পোর্ট পৌরসভার বাস্তবায়নে এ নামাজ ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

নামাজে ইমামতি ও দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন মোংলা উপজেলা ইমাম পরিষদের সভাপতি মাওলানা মুফতি রেজাউল করিম। মোংলার বিভিন্ন এলাকা থেকে নামাজ পড়তে আসেন মুসল্লিরা। এ সময় মুসল্লিরা অঝোরে চোখের পানি ছেড়ে দিয়ে তওবা ও ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

নামাজ শেষে অনাবৃষ্টি এবং গরম থেকে মুক্তির জন্য মহান আল্লাহর রহমত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। এ সময় মুসল্লিরা অঝরে চোখের পানি ছেড়ে দিয়ে তওবা ও ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

নামাজে অংশ নেওয়া মুসল্লিরা জানান, প্রচণ্ড তাবদাহ ও অনাবৃষ্টির কারণে শুকিয়ে যাচ্ছে মাঠঘাট কৃষিজমি। তীব্র খরায় ফলস উৎপাদন নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষক। গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন মানুষ। একের পর এক জারি করা হচ্ছে হিট অ্যালার্ট। হিট স্ট্রোকে মারা যাচ্ছে মানুষ। এই অবস্থায় বৃষ্টি হওয়াটা খুব দরকার। বৃষ্টি হলে গরম কমে যাবে। আল্লাহ তা’আলা সালাতের মাধ্যমে বৃষ্টি বা পানি চাইতে বলেছেন। তাই আমরা সবাই একত্রে নামাজ আদায় করেছি।

নামাজে অংশ নেওয়া মোংলা পোর্ট পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আ: রহমান বলেন, গত কয়েক দিনের অসহনীয় গরমে ওষ্ঠাগত প্রাণ। তীব্র তাপপ্রবাহে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে উঠছে। কাঠফাটা রোদ, প্রচণ্ড গরমে সীমাহীন দুর্ভোগ নিয়ে চলছে জীবন। মাঠের ফসল শুকিয়ে যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে মহান আল্লাহর কাছে বৃষ্টি চেয়ে নামাজ আদায় ও মোনাজাত করা ছাড়া মুমিনদের কোনো উপায় নাই। ধর্মমতে একে ‘সালাতুল ইসতিসকা’ বলা হয়। মোংলাবাসী আজকে নামাজের মাধ্যমে আল্লাহর কাছে বৃষ্টির প্রার্থনা করেছেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মোংলা উপজেলা ইমাম পরিষদের সভাপতি মাওলানা মুফতি রেজাউল করিম, সাধারণ সম্পাদক হাফেজ মাও: আ: রহমান, পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম প্রমুখ।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন