সোমবার, ২০ মে ২০২৪

বাসঝাড় এখন ওদের শেষ আশ্রয়

সিরাজুল ইসলাম
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার টেংরিয়া প্রধান পাড়া গ্রামের দৃষ্টি নন্দিত একটি পুকুর, এক সময় যে পুকুরের পাড় ঘেষে ছিল অসম্ভব বনজঙ্গল। কত আগে এই পুকুর টি খনন করা হয় তা কেউ আদো বলতে পারছেনা তবে ধারণা করা হয় তৎকালীন জমিদার বংশের কেউ এই পুকুরটি খনন করেছিল সেচকপ্লের জন্য। তবে জানা যায় এক সময় এই পুকুরে

বানর,সাপ,বেজি,শিয়াল,বিভিন্ন ধরনের পাখ পাখালি দেখা যেত কিন্তু বনজঙ্গল উজার করার ফলে বর্তমান এসব প্রানী বিলুপ্ত প্রায়।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় এক সময়ের গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য তালগাছ, সুপারি গাছ, নারকেল গাছ গুলোতে একসময় চির চেনা তাঁতি পাখি বাবুই শখের বসে বাসা তৈরি করতো, কিন্তু বিলুপ্ত প্রায় গাছ গুলোতে আশ্রয় না হওয়ায় শেষ আশ্রয় টুকু ও হয়েছে বান্ধা পুকুরের বাস ঝাাড়ে সুনিপুণ ভাবে তৈরি করছে তাদের শখের বাসা। তাদের সাথে প্রতিবেশীর মত মিলেমিশে একাকার হয়ে আছে ডাহুক, খনজনা,বক,বালিহাঁস, ঘুঘু,মাছরাঙা ইত্যাদি পাখপাখালি। ঘুরতে আসা অত্র উপজেলার মো:মুনজিল হক জানান, আসলে আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন এই পুকুর বনজঙ্গলে ঘেরা ছিল ছিল বড়বড় শিমুল, তেতুল,বট,পাকর, ইত্যাদি গাছগাছালির সমারোহ কিন্তু দিন দিন বনজঙ্গল উজার করার ফলে বর্তমানে এসব দৃশ্য চোখে আর নজরে আসেনা। তাই আমাদের বন্যপ্রাণী ও বন উজার রক্ষাতে আমাদের সবাই কে একসাথে একজোট হয়ে কাজ করতে হবে।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন