বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

বগুড়া জেলা শিবগঞ্জে চরম লোডশেডিং জনজীবন অতিষ্ঠ

বগুড়া জেলা প্রতিনিধি মোঃতৌহিদ হাসান

 

 

 

বগুড়ার শিবগঞ্জে পল্লী বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিং করা হচ্ছে।পল্লী বিদ্যুতের এরকম ভেলকিবাজিতে অসহ্য গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে জনজীবন। উপজেলা সদরে একটু কম লোডশেডিং করা হলেও গ্রামাঞ্চলে ঘন ঘন লোডশেডিং করছে শিবগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিস। শুক্রবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত উপজেলা সদরে ৪ থেকে ৫ বার লোডশেডিং করা হলেও গ্রামাঞ্চলে ৮ থেকে ১০ বার লোডশেডিং করা হয়েছে।
উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ অফিস সূত্রে জানা গেছে, বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ শিবগঞ্জ জোনাল অফিসের আওতায় উপজেলাজুড়ে পল্লী বিদ্যুতের প্রায় ৫৩ হাজার গ্রাহক রয়েছে। উপজেলা সদরে পল্লী বিদ্যুতের একটি সাব-স্টেশন। গ্রাহকদের মাঝে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য একটি সাব স্টেশনে ৬ টি ফিডারে বিভক্ত করা হয়েছে। আর এসব ফিডারের মাধ্যমে সব গ্রহকের মাঝে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রচণ্ড দাবদাহ, ভেপসা গরম আবার সেই সঙ্গে পল্লী বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিং। এতে করে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন উপজেলার পল্লী বিদ্যুতের হাজার হাজার গ্রাহক। আর ব্যাহত হচ্ছে সেচ কার্যক্রম, চালকলে চাল উৎপাদন ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম। এছাড়া কাজ শেষে বাড়িতে ফিরে বিশ্রাম বা শান্তি মতো ঘুমাতেও পাড়ছে না মানুষ। এ লোডশেডিংয়ে শিশু, বৃদ্ধ ও অসুস্থ ব্যক্তি এবং হাসপাতালে ভর্তিরত ব্যক্তিদের কষ্ট সবচেয়ে বেশি।
পল্লী বিদ্যুতের বেশ কয়েকজন গ্রাহক বলছেন, গ্রামাঞ্চলে একবার বিদ্যুৎ চলে গেলে আসার কোনো সময় থাকে না। এক-দেড় ঘণ্টা পর আসলেও কিছু সময় পর আবার লোডশেডিং করা হচ্ছে। তারা বলছেন, দিনের বেলা লোডশেডিং কম হলেও রাতে ঘন ঘন লোডশেডিং করা হয়। ফলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন গভীর নলকূপের অপারেটর ও অগভীর নলকূপের মালিকরা জানান, বর্তমানে ইরি-বোরো মৌসুম চলছে। ধানের জমিতে পানি সেচ দিতে হচ্ছে। দিন-রাতে ঘন ঘন পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের কারণে ঠিকমতো বিদ্যুৎ না পাওয়ায় সময়মতো জমিতে পানি সেচ দিতে পারছি না। ফলে ফলন নিয়ে কৃষকরা দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ শিবগঞ্জ জোনাল অফিসের ডিজিএম বলেন, চাহিদার তুলনায় বিদ্যুৎ কম পাওয়ায় লোডশেডিং করতে হচ্ছে

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন