রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

নাটোর বিআরটিএ অফিসে দুদকের অভিযান

মনজুরুল ইসলাম স্টাফ রিপোর্টার

 

কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ও ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে ঘুষ দাবি ও দালালদের মাধ্যমে কাজ করানোর অভিযোগে নাটোর বিআরটিএ অফিসে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টার দিকে নাটোর বিআরটিএ অফিসে অভিযান শুরু করেন দুদকের কর্মকর্তারা।
নাটোর বিআরটিএ অফিসের ভেতর বসেন দালাল, চুক্তিতে করে দেন লাইসেন্স’ শিরোনামে ঢাকা পোস্টে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সেখানে বিআরটিএ অফিসে দালালদের দৌরাত্ম্য ও সেবাগ্রহীতাদের নানা বিড়ম্বনাযর চিত্র তুলে ধরা হয়। এরপর আজ দুদকের কর্মকর্তারা নাটোর বিআরটিএ অফিসে অভিযান শুরু করেন।

অভিযান পরিচালনার সময় ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন করতে দেওয়া বেশ কয়েকজন সেবাগ্রহীতার সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলে অতিরিক্ত অর্থ আদায় ও অফিসে দালালদের
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) রাজশাহীর সমন্বয়কারী সহকারী পরিচালক মো. আমির হোসাইন এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন

অভিযান শেষে আমির হোসাইন বলেন, নাটোর বিআরটিএ অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী দালালের মাধ্যমে ঘুষ গ্রহণ করে এমন অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয় ঢাকা অফিসের নির্দেশে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান চলাকালে বেশ কয়েকজন সেবাগ্রহীতার মোবাইল ফোনে ফোন দিয়ে আমরা এসব অনিয়ম- দুর্নীতির প্রাথমিক সত্যতা পাই

দুদকের এই কর্মকর্তা বলেন, এসব বিষয় নিয়ে বিআরটিএ নাটোরের সহকারী পরিচালকের সঙ্গে আলোচনা করেছি। তিনি (সহকারী পরিচালক) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা- কর্মচারীদের সতর্ক করেছেন। সেই সঙ্গে দালালদের দৌরাত্ম্য বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন বলে জানিয়েছেন।

দুদক কর্মকর্তা আমির হোসাইন আরও বলেন, নাটোর বিআরটিএ অফিসের বেশ কিছু কাগজপত্র সংগ্রহ করেছি। কাগজপত্র পর্যালোচনা করে আমাদের আজকের অভিযানের বিষয়বস্তু নিয়ে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন কমিশন বরাবর দাখিল করব।

এ সময় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) রাজশাহীর উপ-সহকারী পরিচালক মো. সাজ্জাদ হোসেন, সহকারী পরিদর্শক মো. মাহবুবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন