বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

তেতুলিয়ায় সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি

তেঁতুলিয়ায় সীমান্তবর্তী এলাকায় সড়ক নির্মান মাটি ভরাট

কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। গ্রামবাসী জানায়, অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে একাধিকবার জানানো হলেও কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়নি।তেতুলিয়া এলজিইডি সূত্র জানায়,জানা যায়,পঞ্চগড়ের তেতুলিয়া

নির্বাহী প্রকৌশলী অধীনে তেঁতুলিয়ার উপজেলার ৪ নং শালবাহান ইউপির বোয়ালমারী থেকে পরিষদের মুহুরী হাট পর্যন্ত ১ হাজার ৯২০ মিটার পর্যন্ত বৃহত্তর দিনাজপুর জেলার গ্রামীণ অবকাঠামোর উন্নয়ন প্রকল্পের (জিডিডিআরআইডিপি) এর প্রকল্পের আওতায় প্রাক্কলিত মূল্য ২ কোটি ৫ লাখ ৩৬ হাজার ৮০১ টাকা।
চুক্তি মূল্য ১ কোটি ৮৪ লাখ ৮৩ হাজার ১২০ টাকা চুক্তিতে রাস্তার নির্মান কাজটি করছে এমএইচ কর্পোরেশন নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।
লাইসেন্সে কাজটি করছেন ঠিকাদার মোঃ ওয়াকিল আলী।
কাজটি শুরু হয়েছে চলতি বছরের জানুয়ারীর ২৩ জানুয়ারী। যা আগামী বছর ২১ জানুয়ারীতে কাজ শেষ করতে বলা হয়েছে।

রোববার দুপুরে সরেজমিনে শালবাহান ইউনিয়নের মহিগছ এলাকায় পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার বেশ কিছু জায়গা জুড়ে বালুর পরিবর্তে কাঁদা মিশ্রিত পুকুরের মাটি ফেলা হয়েছে। তাতে ক্ষোভে প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছেন গ্রামবাসিরা।

এব্যাপারে তেঁতুলিয়া উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয়ের সার্ভেয়ার জয়নাল আবেদীন ঘটনার
স্বীকার বলেন, বালি ফেলার নিয়ম রয়েছে। তাই কাঁদা মিশ্রিত মাটি ফেলা যাবে না। তাই যিনি ফেলেছেন তা অপসারণ করে বালু ফেলা হবে।

এ বিষয়ে শালবাহান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘ অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে এসে অভিযোগের সত্যটা পেয়েছি। এখানে বালুর পরিবর্তে কাঁদা মিশ্রিত মাটি ফেলায় কাজটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বিষয়টি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিক ওয়াকিল ভাইয়ের সাথে কথা বলেছি। তবে যিনি ফেলেছেন তার সাথে এ নিয়ে কোন চুক্তি হয়নি। এ বিষয়ে তেতুলিয়া
এলজিডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রমজান আলী
বলেন, খোঁজ-খবর নিয়ে বিষয়টি জানার চেষ্টা করছি।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন