রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে, প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ হলেও চলছে তেতুলিয়ায় মাধ্যমিক

পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি খাদেমুল ইসলাম

 

 

তীব্র শীতের কারণে বিপর্যয় নেমে এসেছে উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে তেতুলিয়ায় ।
এতে করে বিপাকে পড়েছে জেলার সাধারণ মানুষ। এদিকে শৈত্যপ্রবাহের দুর্ভোগ থেকে শিক্ষার্থীদের রক্ষায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে নতুন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।
পঞ্চগড়ের তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নেমে আসায় সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ হলেও বন্ধ হয়নি মাধ্যমিকের কার্যক্রম।

পঞ্চগড়ের তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নেমে আসায় সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ হলেও বন্ধ হয়নি মাধ্যমিকের কার্যক্রম।

 

তবে পঞ্চগড়ের তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নেমে আসায় সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ হলেও চলছে মাধ্যমিকের কার্যক্রম। অথচ সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট বলা হয়েছে, দেশের যেসব এলাকায় তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নামবে সেখানকার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধ থাকবে।

সরেজমিনে বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) ঘুরে দেখা গেছে, প্রথমিকের শিক্ষার্থীরা প্রতিদিনের মতো শীতকে অপেক্ষা করে প্রথম শিফটের ক্লাস শুরু করলে তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রির খবরে সকাল ১১টায় বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম স্থগিত করে কর্তৃপক্ষ। তবে বেলা গড়িয়ে দুপুর ১টা বাজলেও শহরের সরকারি বিপি উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে স্বাভাবিক নিয়মে পাঠদান চলতে দেখা যায়। শিক্ষা কর্মকর্তার আদেশ না পাওয়ায় বিদ্যালয়ের কার্যক্রম স্বাভাবিক বলে বলছেন শিক্ষকরা।

 

পঞ্চগড় সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খায়রুল আনাম মো. আফতাবুর রহমান হেলালী বলেন, ‘আমাদের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) থেকে নির্দেশনা আসছে যে আঞ্চলিক পরিচালক যারা আছেন তারা জেলা শিক্ষা অফিসারের সঙ্গে কথা বলে স্থানীয় আবহাওয়া অফিসের প্রমাণ হিসেবে তথ্য সংগ্রহ করে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণার নির্দেশ দেবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত (দুপুর ১টা) লিখিত কোনো নির্দেশনা পাই নি। যে কারণে আমরা আমাদের বিদ্যালয়ের পাঠদানসহ স্বাভাবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি।’

এ বিষয়ে পঞ্চগড় সরদ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সাইফুল আলম বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা আছে যে ১০ ডিগ্রির নিচে তাপমাত্রা হয় তাহলে বিদ্যালয়গুলোর পাঠদান বন্ধ রাখতে হবে। সে বিষয়ে আমাদের জেলা শিক্ষা অফিসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। আজকে ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি তাপমাত্রার বার্তা আমরা সকাল ৯/১০ টার দিকে পেয়েছি। তবে উপজেলা প্রশাসনের জরুরি সভায় উপস্থিত থাকায় আমরা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাসহ বিদ্যালয়গুলো লিখিত নোটিশ করতে পারি নি। তবে অফিস স্টাফকে বিদ্যালয়গুলোতে ফোন দিয়ে কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

এদিকে পঞ্চগড়ের সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সাইফুজ জামান বলেন, ‘তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের লিখিত রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে আজকের প্রথমিক বিদ্যালয়ের কার্যক্রম ও পাঠদান স্থগিত ঘোষণা করা হয়। তবে আগামী রোববার (২১ জানুয়ারি) বিদ্যালয়গুলোতে আবারও পাঠদান কার্যক্রম স্বাভাবিক হবে। এর মাঝে যদি আবারও তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নেচে নেমে যায় তাহলে ফের পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ রাখা হবে।’

 

 

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের পর্যবেক্ষক রোকনুজ্জামান রোকন বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরে জেলার তাপমাত্রা ওঠা-নামা করছে। এদিকে হঠাৎ বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা কমে ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। আগামীতে আরও তাপমাত্রা কমে এসে শীতের তীব্রতা বাড়বে বলেও জানান তিনি।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যেসব এলাকায় তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি বা এর নিচে নামবে সেসব এলাকায় বিদ্যালয় বন্ধ রাখা যাবে।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন