বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

টুঙ্গিপাড়ায় সাংবাদিক সোহাগের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান বিএমইউজে গোপালগঞ্জ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

ষষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনের কলহের জের ধরে সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান এর ক্ষমতার দম্ভের ফল স্বরূপ এলাকা ভিত্তিক গিমাডাঙ্গা ও শ্রীরামকান্দি গ্রামের পূর্ব শত্রুতায় মিথ্যা, ভুয়া ও ষড়যন্ত্র মূলক মামলার শিকার অপরাধ জগত পত্রিকার প্রতিনিধি গোপালগঞ্জ জেলা স্টাফ রিপোটার আবু নাঈম সোহাগের বিরুদ্ধে আনিত মামলার প্রত্যাহারের দাবি জানান বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি হাজী মোঃ সোহেল আহম্মেদ ও সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক খান।

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় প্রতিদ্বন্দিতা করেন টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ বাবুল শেখ ও সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী মাসুদুল হক। নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা সুন্দর ও সুশৃঙ্খল ভাবে সম্পন্ন হলেও নির্বাচনের দিনে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর একপাশে আচরণে ক্ষিপ্ত হয়ে সাধারণ ভোটার ও পুলিশের মাঝে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। সরেজমিনে গেলে সাধারণ ভোটাররা বলেন এস,এই বদিয়ার আমাদেরকে দোয়াত কলমে ভোট দিতে বলেন। ভাট গ্রহনের মাঝে তিনি নিজেই দোয়াত কলমে সীল মারতে শুরু করেন। ব্যপারটি জন সম্মুক্ষে ছড়িয়ে পড়ে এবং উত্তেজনার সৃস্টি হয়ে সাধারণ ভোটার ও আইন শৃঙ্থলা বাহিনীর মাঝে সংঘর্ষ হয়।

এ ব্যপারে টুঙ্গিপাড়া থানায় একটি মামলা হয়, মামলায় গিমাডাঙ্গা এলাকার অনেকেই আসামি করা হয়। যারা আদৌ এই কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত নয়। শুধু তাই নয় এই মামলায় ফাঁসানো হয়েছে ” অপরাধ জগত ” পত্রিকার গোপালগঞ্জ জেলা স্টাফ রিপোর্টার ও বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়ন গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সদস্য সচিব আবু নাঈম সোহাগ)কে। সাংবাদিক সোহাগ নির্বাচন চলাকালীন সময়ে পর্যবেক্ষক হিসেবে বিভিন্ন কেন্দ্রে কাজ করেছিলেন। তিনি বাংলাদেশ মফস্বলর সাংবাদিক ইউনিয়ন গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এ জেড আমিনুজ্জামান রিপন সহ সাংবাদিক শিহাব মোল্লা, সাংবাদিক এমডি নাঈম ও রাব্বানী এর সাথে একত্রে কাজ করছিলেন। গন্ডগোল হয়েছে শুনে আমরা সকলে ওই কেন্দ্রে ছুটে যাই ততক্ষণে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে ও ভোট গণনা শেষ হয়ে যায়।
এব্যাপারে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়ন গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এ জেড আমিনুজ্জামান রিপন বলেন, এলাকার রেষারেষি ও কলহের কারণে মামলা হয়েছে। ঘটনার সাথে যারা জড়িত তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক, আর এই মামলায় প্রতি হিংসা মূলক ভাবে যাদেরকে ফাঁসানো হয়েছে তাদেরকে অতিসত্বর রেহাই দেয়া হোক। তাছাড়া তিনি আরো বলেন, গণমাধ্যম কর্মী ও সাংবাদিকরা সমাজের নানাবিধি দুর্নীতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে কলম ধরার চেষ্টা করে। অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয় না। সাংবাদিক আবু নাঈম সোহাগ এর বিরুদ্ধে আনিত ভুয়া ও মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই সেই সাথে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাই।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন