শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪

আমার যাওয়ার সময় হয়ে গেছে শামীম ওসমান

মোঃ শাহাদাত হোসেন স্টাফ রিপোর্টার

 

নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন আমার যাওয়ার সময় হয়ে গেছে। আমার পরিবারের সদস্যরা এই বয়সে চলে গেছেন আমার বয়স ৬২ বছর ৯ মাস। যেকোনো সময় আল্লাহর ডাকে আমি চলে যেতে পারি। তাই আল্লাহকে খুশি করে যাওয়া উচিত প্লিজ আমাকে কাজ করার সুযোগ দিন। মানুষ মাত্রই ভুল হয় আমি কোন ভুল করে থাকলে ক্ষমা করে দিবেন। মৃত্যুর পর যেন সূরা ফাতিহা পড়ে আমার জন্য দোয়া করে মানুষ এটাই আমার চাওয়া। ২৮ নভেম্বর দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরে একটি রেস্টুরেন্টে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। শামীম ওসমান বলেন এবার যখন ফিল্ড ওয়ার্ক নামবো আমাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হবে তাদের উদ্দেশ্যে বলি কাপুরুষের মত বোমা হামলা করবেন না। ২০০১ সালে আমার জন্য বিশটা মানুষ মারা গেছেন। ওই পরিবারগুলো দেখে আসেন বাচ্চা মেয়েগুলো বিধবা হয়েছে। মারতে চাইলে আমাকে ডাইরেক্ট গুলি করুন কিন্তু বোমা হামলা করবেন না। তারেক রহমানকে খলনায়ক আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন তার মায়ের প্রতি টান নেই। একুশে আগস্ট বোমা হামলায়২৪ জনকে মেরেছে তারেক জিয়ার নেতৃত্বে। তালেবান ও উলফাদের আশ্রয় দিয়েছেন। সিনিয়ারনেতাদের সাথে তারেকের কোনমতেই মেলে না। নারায়ণগঞ্জ বিএনপি যারা আছেন তারা প্লিজ কারো কথা শুনে নাচবেন না আগামী ১৫ থেকে ২০ দিনে কিছু নির্মম ধ্বংসাত্মক কার্য করার চেষ্টা হবে। হয়তো এ কথা বলার জন্য আমি থাকবো না। আজ সময় এসেছে উল্লেখ করে বলেন এখন চলে যাবার সময়। এখন সময় এসেছে উল্লেখ করে বলেন এখন চলে যাবার সময় আগামীবার হয়তো ইলেকশন করবো না। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার মত হয়তো আমার ব্রেন নেই। এটা করবেন সজীব ওয়াজেদ জয়

যারা স্মার্ট বাংলাদেশ সেই তরুণ প্রজন্মের হাতে আগামীতে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে বিদায় নেবো দুনিয়াটা ঘুরে দেখব। তিনি বলেন বিএনপি’র ৩০টি পরিবার থেকে আমার কাছে ফোন এসেছে। তারা কান্নাকাটি করছেন। এবং বলছেন বাবা আমার ছেলেটার কি হবে আমি আপনাদের মাধ্যমে প্রশ্ন করতে চাই আমি কি করতে পারি। তবুও আমি চাই কোন নীর অপরাধ লোক যেন মামলায় না জড়ায়। সে যে দলের ই হোক না কেন প্রশাসনকে সেই অনুরোধ করতে চাই। তিনি বলেন আমি আমার নারায়ণগঞ্জ চার আসনে উন্নয়নমূলক কি কি কাজ করেছি তার প্রমাণ নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের জনগণ। প্রচারণা শুরুর বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন আব্বা আম্মা ও সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতাদের কবর জিয়ারত করে প্রচারে নামবো। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন আমার অসমাপ্ত কাজগুলো যেন আগামীতে সম্পন্ন করে যেতে পারি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবু হাসনাত মোঃ শহীদ বাদল। আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা। সিনিয়ারসহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু চন্দন শীল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন আপনাকে কে বা কারা মারতে পারে। কিন্তু এ প্রশ্নেরে কোন জবাব তিনি দেননি।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন