বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

অনুসারী ভক্ত ও নেতা কর্মীদের ভিড় মামুনুল হক কে একনজর দেখতে

শাহাদাত হোসেন
স্টাফ রিপোর্টার

কারামুক্ত হওয়া হেফাজত ইসলাম এর সাবেক যুগ্ন মহাসচিব মামুনুল হকের বাড়ির সামনে তার অনুসারী ভক্ত ও নেতা কর্মীরা তাকে এক নজর দেখার জন্য ভিড় করে দাঁড়িয়ে আছেন। শুক্রবার ৩রা মে রাজধানীর মোহাম্মদপুর কাদেরাবাদ হাউজিং এর বাড়ির সামনে তার ভক্ত ও অনুসারীরা ভিড় করেন। বাড়ির সামনে গিয়ে দেখা যায় তাকে এক নজর দেখার জন্য ভিড় করে দাঁড়িয়ে আছে তার অনুসারী ভক্ত এবং নেতা কর্মীরা সময় যত গড়াচ্ছে ততই বেড়ে চলেছে ভক্ত ও নেতাকর্মীদের ভিড়। এমনকি তার নেতাকর্মীরা দাঁড়িয়ে আছেন তার বাড়ির সামনে। দায়িত্ব রত এক নেতা বলেন যে উনি দীর্ঘদিন কারাগারে ছিলেন আজ মুক্তি পেয়েছেন আপনারা যেমন খুশি হয়েছেন আমরাও খুশি হয়েছি তিনি একটু বিশ্রাম করছেন আশা করি উনি আপনাদের সাথে অবশ্যই দেখা করবেন। সাইফুল হাদিস পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা হাসান জুনায়েদ বলেন আপনারা অনেক দূর থেকে এসেছেন উনাকে এক নজর দেখতে তার জন্য আপনাদেরকে ধন্যবাদ জানাই তিনি একটু সাম নিচ্ছেন বিশ্রাম শেষে আপনাদের সাথে দেখা করবেন। আজ বিকেলে কেরানীগঞ্জ তিনি তার বাবা মরহুম মাওলানা আজিজুল হকের কবর জিয়ারত করবেন।

প্রসঙ্গত ২০১১ সালে ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও রয়েল রিসোর্ট এক নারীর সঙ্গে মাওলানা মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করেন স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। এরমধ্যে খবর পেয়ে হেফাজত ইসলামের স্থানীয় নেতাকর্মীরা রিসোর্ট গিয়ে ভাঙচুর চালিয়ে তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। ঘটনার পর থেকে ঢাকায় মোহাম্মদপুর জামিয়া রহমানিয়া আরবিয়া মাদ্রাসায় অবস্থান করেন মামুনুল হক। ১৫ দিন পর ১৮ এপ্রিল ওই মাদ্রাসা থেকে মাওলানা মামুনুল হক কে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ত্রিশে এপ্রিল সোনারগাঁও থানায় তার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখে ধর্ষণের মামলা দায় করেন তার সঙ্গে রিসোর্টে অবরুদ্ধ হওয়া ওই নারী। যদিও ওই নারীকে তার দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করে আসছিলেন মামুনুল হক । এরপরে ওই মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী সহ প্রায় ৫০ টি র মতো মামলা হয় । সেসব মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ গ্রেফতারের পর থেকেই এসব মামলায় কারাগারে ছিলেন তিনি।

থেকে আরও পড়ুন

থেকে আরও পড়ুন